বুধবার, ০১ এপ্রিল ২০২০, ০১:৩৭ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :

আবারো যাত্রীবাহী বাসে গণধর্ষণ

worksfare LTD
  • Update Time : ১৭ ফেব্রুয়ারী, ২০২০
  • ৮১ Time View

আবারো যাত্রীবাহী বাসের মধ্যে এক নারী (৩৩) গণধর্ষণের শিকার হয়েছেন। এ ঘটনায় জড়িত ইছামতি পরিবহনের চালক, কন্ডাক্টর ও হেলপারকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে।

গ্রেফতার হওয়াদের মধ্যে রয়েছেন বাস চালক শেরপুরের নকলা থানার ধনাকুশ গ্রামের ওমর আলীর ছেলে আমীর হোসেন (২৯), একই জেলা ও থানার ইশিবপুর এলাকার সুশীল চন্দ্র শীলের ছেলে বাসের কন্ডাক্টর অমিত শীল ওরফে বাবু (২৪) ও ময়মনসিংহের ফুলপুর থানার ঠাকুরবাহাই এলাকার আতাউর রহমানের ছেলে বাসের হেলপার মোজাম্মেল (২৫)।

গত ১২ ফেব্রুয়ারি গাজীপুর সিটি করপোরেশনের ভোগড়া পেয়ারাবাগান এলাকায় ঢাকা বাইপাস সড়কে গণধর্ষণের ঘটনাটি ঘটে। গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের বাসন থানার পরিদর্শক (তদন্ত) ও মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা নন্দলাল চৌধুরী জানান, গত বুধবার রাতে এক নারী টঙ্গী থেকে গাজীপুর সদর উপজেলার মেম্বার বাড়ি এলাকায় তার এক আত্মীয়ের বাড়িতে বেড়াতে যান। তিনি রাতেই টঙ্গী যাওয়ার উদ্দেশে স্থানীয় মেম্বারবাড়ী বাসস্ট্যান্ড হতে ইছামতি পরিবহনের একটি বাসে ওঠেন। এক পর্যায়ে বাস চালক ও সহকারীরা বাসটি গাজীপুর সিটি করপোরেশনের চান্দনা চৌরাস্তায় পৌঁছানোর পর যাত্রীদের নামিয়ে দেন। তখন বাসে ওই নারী ও তার সঙ্গে থাকা আরও এক বয়স্ক নারীসহ ৪/৫ জন যাত্রী ছিলেন। চালক বাসটি নিয়ে চান্দনা চৌরাস্তা হতে ভোগড়া বাইপাস মোড় পৌঁছার পর দুই নারী ছাড়া বাস থেকে অন্য যাত্রীদের নামিয়ে দেওয়া হয়। ওই দুই নারী বাস থেকে নামার চেষ্টা করলে বাসের চালকের সহযোগীরা তাদের আটকে রাখেন।

রাত পৌনে ১২টার দিকে ভোগড়া এলাকার গরুকাটা ব্রিজের কাছে পৌঁছে বাসের চালক, কন্ডাক্টর ও হেলপার এবং অজ্ঞাত এক ব্যক্তি মিলে কম বয়সী নারীকে (৩৩) ধর্ষণ করেন। এরপর ভোরে ধর্ষকরা পালিয়ে যান। খবর পেয়ে পুলিশ বাসটি জব্দ করে। এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার বয়স্ক নারী (৫২) বাসন থানায় মামলা দায়ের করলে পুলিশ অভিযান চালিয়ে ওই দিনই মহানগরীর বিভিন্ন এলাকা থেকে তিন ধর্ষককে গ্রেফতার করে। শুক্রবার তিন ধর্ষকই আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


More News Of This Category